থানায় প্রেমিক-প্রেমিকার বিয়ে!অতঃপর এলাকায় তোলপাড়

বগুড়ার শেরপুর থানায় এক প্রেমিক যুগলের বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। পুলিশের মধ্যস্থতায় দুই পরিবারের সম্মতিতে তিন লাখ টাকা দেনমোহরে এই বিয়ে সম্পন্ন হয়। শনিবার দুপুরে পৌরসভার কাজী ডেকে থানার সার্ভিস ডেলিভারী সেন্টার কক্ষে রেজিস্ট্রি ও বিয়ে পড়ানো হয়। ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকায় বেশ আলোচনার সৃষ্টি হয়।

শেরপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) বুলবুল ইসলাম জানান, শেরপুর উপজেলার কুসুম্বী ইউনিয়নের বাগড়া পশ্চিমপাড়া গ্রামের ফজর আলীর ছেলে সুমন সেখের (২৩) সঙ্গে গাজীপুর জেলার মণিপুর এলাকার মতিন সেখের মেয়ে মাহি সেখের (২১) মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পরিচয় ঘটে। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। দীর্ঘ দুই বছর ধরে যোগাযোগ অব্যাহত থাকার সূত্রধরে গত শুক্রবার মাহি সেখ তার এক ফুফাতো বোনকে নিয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে শেরপুর উপজেলার বাগড়া গ্রামে সুমন সেখের বাড়িতে চলে আসে।

পুলিশের এ কর্মকর্তা জানান জানান, স্থানীয় লোকজন ঘটনাটি জানতে পেরে থানা পুলিশকে সংবাদ দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে ওই প্রেমিক যুগলকে উদ্ধার করে থানায় আনে। একপর্যায়ে উভয় পরিবার বিয়েতে রাজি হন।

পরে কাজী ডেকে জনপ্রতিনিধি ও গণমাধ্যম কর্মীদের উপস্থিতিতে তিন লাখ টাকা দেমনোহর ধার্য করে থানায় তাদের বিয়ে দেয়া হয় বলে পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান।